শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে নতুন করে রহস্য দানা বাঁধল, মৃতদেহ দেশে আনার ক্ষেত্রেও থাকছে অনেক বিধিনিষেধ

দেশ বিদেশ বিনোদন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Published on: ফেব্রু ২৬, ২০১৮ @ ২০:৩৯

এসপিটি নিউজ ডেস্কঃ প্রথমে দুবাইয়ের চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে কোনও সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েই তার মৃত্যু হয়েছে।কিন্তু এরপরই সেই রিপোর্টকে ভুল প্রমাণিত করে দুবাই পুলিশ টুইটারে এক ফরেন্সিক রিপোর্ট প্রকাশ করে। যেখানে তারা জানায়, দুর্ঘটনাজনিত ডুবেই মৃত্যু হয়েছে বলিউড তারকা শ্রীদেবীর। আর সেক্ষেত্রে এই মামলাটি দুবাই পাবলিক প্রসিকিউশনে স্থান্তর করা হয়েছে। এই ধরনের মামলায় নিয়মিত আইনি প্রক্রিয়া অনুসরন করা হবে বলে দুবাই পুলিশ জানিয়েছে। গালফ নিউজ সূত্রে এই খবর প্রকাশিত হতেই গোটা দেশ জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। ফলে এদিন যে দেশে শ্রীদেবীর মৃতদেহ আসার কথা ছিল তাও আটকে যায়। সেক্ষেত্রে এই আইনি প্রক্রিয়া কাটিয়ে মৃতদেহ দেশে নিয়ে আসার ক্ষেত্রেও প্রশ্ন থেকে গেল।

গালফ নিজ সূত্রে জানা যাচ্ছে, হোটেলে স্নানের সময় দুর্ঘটনাজনিত কারণে মারা গেছেন বলিউড তারকা শ্রীদেবী।দুবাইয়ের মিডিয়া অফিসে টুইটারে বলা হয়েছে, “পোস্টমর্টেম বিশ্লেষণের সমাপ্তির পরে, দুবাই পুলিশ সদর দফতর থেকে জানানো হয়েছে, ভারতীয় অভিনেত্রী শ্রীদেবীর মৃত্যু তার হোটেল অ্যাপার্টমেন্টে স্নানের সময় বাথটবে ডুবে যাওয়ার কারণে ঘটেছিল”।

ভারতীয় চলচ্চিত্র শিল্পের প্রথম নারী সুপারস্টার হিসেবে পরিচিত ৫৪ বছর বয়সী অভিনেত্রী, শনিবার রাতে দুবাই হোটেলের রুমে মারা যান।

দুবাই ভিত্তিক গলফ নিউজ জানায়, এই অভিনেত্রী ঘটনার সময় মাদকাসক্ত ছিলেন। তিনি বাথটবের মধ্যে ডুবে এবং ডুবা, এটি যোগ করা হয়েছে।

আরব এমিরেটসের সরকারি টুইটার হ্যান্ডেলে ফরেনসিক রিপোর্টের একটি কপি সংযুক্ত করা হয়েছে। যেখানে মৃত্যুর কারণ হিসাবে দুর্ঘটনার ডুবে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে রিপোর্টটিতে “স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের” স্ট্যাম্প মারা হয়েছে এবং নাম আছে প্রতিরোধকারী ওষুধের পরিচালক, দুবাই-এর ডা. সামি ওয়াদির।

এই রিপোর্টে অভিনেত্রীর পূর্ণ নাম, “শ্রীদেবী বনি কাপুর আয়প্পান”, তার পাসপোর্ট নম্বর, ঘটনা তারিখ এবং মৃত্যুর কারণ উল্লেখ করা হয়েছে।

“তদন্তটি এখনও দুর্ঘটনার পার্শ্ববর্তী পরিস্থিতি নির্ধারণে চলছে। কারণ ফৌজদারী প্রতিবেদনটি কেবল বলে যে সে ডুবে গেছে, গালফ নিউজ জানিয়েছে একটি অফিসারের উদ্ধৃতি দিয়ে একথা বলা হয়েছে।

এদিন যেমন কেটেছে মৃত্যু রহস্য নিয়ে তা গালফ নিউজে সময় ধরে তুলে ধরা হয়।

দুপুর দেড়টা

ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশ

সূত্র জানায়, দুবাই পুলিশ শ্রীদেবী মারা গেছেন বলে তার পরিবারের কাছে এবং ভারতীয় দূতাবাস প্রতিনিধির কাছে ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশ করেন। যদিও তারা কেউই খাম খোলেননি। এটি বুর  থানার কাছে পাঠানো হয়। উভয় প্রতিনিধিই থানায় পৌঁছন।

দুবাই পুলিশ খামটি খোলে এবং পরিবারকে জানানো তথ্য, তারপর প্রত্যাবর্তন প্রক্রিয়ার পরবর্তী ধাপে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে তারা জানান।

দুপুর ২টো ১৩ মিনিট

দুবাই পুলিশ বলছে, প্রাথমিক তদন্তে তারা দেখেছে যে, হোটেলের বাথটবে চেতনা হারিয়েছে বলিউড অভিনেত্রী শ্রীদেবী।তারা তার শরীরের মধ্যে অ্যালকোহলের সন্ধান পেয়েছে এবং যা এই দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে। অফিসিয়াল গালফ নিউজ জানায়, “তদন্ত এখনও দুর্ঘটনার পার্শ্ববর্তী অবস্থার নির্ধারণ করতে যাচ্ছে, ফরেনসিক রিপোর্ট শুধুমাত্র বলে যে তিনি ডোবা অবস্থায় ছিলেন,” বলেছে গালফ নিউজ।

পুলিশ গোটা ঘটনার ধারাবাহিকভাবে একসঙ্গে টুকরো টুকরো করার চেষ্টা চালাচ্ছে এবং ঘটনার সময় তার সঙ্গে কে ছিল পুলিশ তাও তা খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে।

ফরেনসিক রিপোর্ট অনুযায়ী, শ্রীদেবীর দেহে মিলেছে অ্যালকোহলের নমুনাও, দুর্ঘটনাজনিত কারণে ডুবে মারা যান তিনি, বলা হচ্ছে তাও।

দুপুর সাড়ে তিনটে

দুবাই মিডিয়া প্রসিকিউশন জানায়, দুবাই পুলিশ এই মামলার দুবাই পাবলিক প্রসিকিউশনের কাছে হস্তান্তর করেছে, যা এই ধরনের মামলায় নিয়মিত আইনী প্রক্রিয়া অনুসরণ করবে।

বিকেল ৪টে ২০মিনিট

এই ক্ষেত্রে কী পদ্ধতি?

একটি প্রধান প্রসিকিউটর গল্ফ নিউজকে বলেছিলেন: “এই ধরনের দুর্ঘটনাপূর্ণ মৃত্যুর ঘটনাগুলোতে, পোস্ট মর্টেম এবং ফরেনসিক পরীক্ষার ফলাফলগুলি সাধারণ আইন প্রয়োগকারী প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে পাবলিক প্রসিকিউশনকে বলা হয়। এই ঘটনার প্রেক্ষাপটে এই মামলার পুনর্গঠন করা হয়। মৃতের দেহকে পরিবারের বা আত্মীয়দের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য একটি সরকারী আদেশ জারি করা হয়। ”

কোন সন্দেহজনক ভুল খেলার ক্ষেত্রে, প্রসিকিউটর আরও বিস্তারিত তদন্ত চালায় এবং সেই অনুযায়ী ভবিষ্যতে কোন আইন প্রয়োগকারী প্রক্রিয়া সিদ্ধান্ত নিতে হবে, বলেন প্রধান প্রসিকিউটর।সূত্রঃ গালফ নিউজ

Published on: ফেব্রু ২৬, ২০১৮ @ ২০:৩৯


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *