ত্রিপুরায় মানিক সাহাকে নতুন মুখ্যমন্ত্রী করল বিজেপি, দলের নির্দেসেই পদত্যাগ বিপ্লবের

Main দেশ রাজ্য
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Published on: মে ১৪, ২০২২ @ ২১:৫১

এসপিটি নিউজ, আগরতলা, ১৪ মে:  এর আগে একাধিক রাজ্যে বিজেপি তাদের মুখ্যমন্ত্রী বদল করেছে। এবার সেই একই পথে হাঁটল এবার ত্রিপুরাও। সেখানেও আজ তারা নয়া মুখ্যমন্ত্রী করেছে রাজ্য সভাপতি তথা রাজ্যসভার সাংসদ মানিক সাহাকে। সূত্রেখবর বলছে, এবার বিপ্লব দেবকে দল ত্রিপুরার সভাপতি করবে। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে দলের নির্দেশেই তিনি এই পদত্যাগ করেছেন। দল এতদিন তার উপর ভ্রসা করেছিল। সেই মতো রাজ্যের উন্নয়নে কাজ করার সৌভাগ্য অর্জন করেছিলেন। এখন দল চেয়েছে বলেই তিনি পদত্যাগ করলেন।

সূত্রের খবর, ২০২৩ সালের বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়ে এখন থেকেই কোমর বাঁধতে শুরু করেছে বিজেপি। তারা চাইছে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নতুন মুখ। আর তাই এই পরিকল্পনা।একদিন আগেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেছিলেন বিপ্লব দেব। এই সময় অমিত শাহ স্পষ্ট জানিয়েছিলেন যে তিনি নতুন মুখ নিয়ে নির্বাচনে নামতে চান।

মানিক সাহা ত্রিপুরার বিজেপি সভাপতি এবং রাজ্যসভার সাংসদ। সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী পদের দৌড়ে ডেপুটি সিএম জিষ্ণু দেব ভার্মার নামও আলোচনায় ছিল। ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে ত্রিপুরায় নির্বাচন হওয়ার কথা। বিপ্লবের পদত্যাগের পর, বিজেপি ভূপেন্দ্র যাদব এবং বিনোদ তাওদেকে পর্যবেক্ষক হিসাবে নিযুক্ত করেছে। আজ রাত ৮টায় আইনসভার বৈঠক শুরু হবে।

বিপ্লব বলেন- পার্টি সবার উপরে এবং আমি একজন অনুগত কর্মী

পদত্যাগের পরপরই মিডিয়ার সামনে হাজির হওয়া বিপ্লব বলেন, “দল সর্বাগ্রে এবং আমি একজন অনুগত কর্মী। হাইকমান্ড আমার প্রতি আস্থা রেখেছিল এবং এখন পদত্যাগ করতে বলেছে, তাই আমি পদত্যাগ করেছি। আমি প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছি। এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদি ও অমিত শাহের সঙ্গে কথা বলেছি।”  তিনি বলেছেন যে নির্বাচন এখন বিলম্বিত। এখন আমি দলকে শক্তিশালী করতে কাজ করব।”

২০২৩ সালের নির্বাচনের প্রস্তুতির পরিপ্রেক্ষিতে নতুন মুখ্যমন্ত্রীর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। গতবারের জনপ্রিয় স্লোগান ‘চলো পাল্টাই’ থেকে সরে এসে এবারও উন্নয়নমূলক কাজে জনগণের কাছে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে দলটি।

২০১৮ সালে ত্রিপুরায় প্রথমবারের মতো বিজেপি সরকার গঠিত হয়েছিল

২০১৮ সালে ত্রিপুরায় প্রথমবারের মতো বিজেপি সরকার গঠিত হয়েছিল, তারপরে বিপ্লবকে মুখ্যমন্ত্রী করা হয়েছিল। সূত্রের মতে, গত মাসে প্রায় ১৪ জন বিজেপি বিধায়ক একটি দল তৈরি করেছিলেন এবং হাইকমান্ডের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। প্রতিবারই বিপ্লব দেবের সামর্থ্যকে টার্গেট করা হয়েছে। তবে সে সময় কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। এখন নির্বাচনকে সামনে রেখে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে দলটি।

১১ মাসে ৪টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বদল করল বিজেপি

গত ১১ মাসে ৪টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বদল করেছে বিজেপি। গত বছর ২০২১ সালের জুলাই মাসে, তীরথ সিং রাওয়াতকে সরিয়ে পুষ্কর সিং ধামিকে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী করা হয়েছিল। একই মাসে, কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদুরাপ্পা পদত্যাগ করেন এবং বাসভ রাজ বোমাইকে মুখ্যমন্ত্রী করেন। এর পরে, সেপ্টেম্বরে, বিজয় রূপানিকে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে ভূপেন্দ্র ভাই প্যাটেলের স্থলাভিষিক্ত করা হয়েছিল। এবার ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব পদত্যাগ করেছেন।

Published on: মে ১৪, ২০২২ @ ২১:৫১


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •