‘থাইল্যান্ড পাস’ রেজিস্ট্রেশন স্কিম ১ জুলাই ২০২২ থেকে তুলে নেওয়া হবে

Main দেশ বিদেশ ভ্রমণ রাজ্য
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

থাইল্যান্ডে প্রবেশের সময়, ভ্রমণকারীদের শুধুমাত্র ভ্রমণের ৭২ ঘন্টার মধ্যে ভ্যাকসিনেশনের একটি শংসাপত্র বা একটি নেতিবাচক RT-PCR বা পেশাদার ATK পরীক্ষার ফলাফলের প্রমাণ দেখাতে হবে।
Published on: জুন ১৭, ২০২২ @ ২৩:৪৫
Reporter: Aniruddha Pal

এসপিটি নিউজ: ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে আসছে থাইল্যান্ড পর্যটন। এবার তারা থাইল্যান্ড পাস তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল। থাইল্যান্ডের সেন্টার অফ COVID-19 সিচুয়েশোন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (CCSA) আজ থাইল্যান্ড পাস রেজিস্ট্রেশন স্কিম অপসারণের অমুমোদন দিয়েছে এবং বিদেশি দর্শনার্থীদের জন্য ১০  হাজার মার্কিন ডলার স্বাস্থ্য বীমা প্রয়োজনীয়তা ১ জুলাই ২০২২ থেকে কার্যকর হতে চলেছে। উভয় প্রয়োজনীয়তা প্রাথমিকভাবে থাই নাগরিকদের জন্য ১ জুন ২০২২ থেকে তুলে নেওয়া হয়েছিল। ট্যাট নিউজ এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এখবর জানিয়েছে।

থাইল্যান্ড ভ্রমণে নিয়মবিধি

1 জুলাই, 2022 থেকে, বিদেশী নাগরিকদের শুধুমাত্র ভ্রমণের 72 ঘন্টার মধ্যে ভ্যাকসিনেশনের শংসাপত্র বা নেতিবাচক RT-PCR বা পেশাদার ATK পরীক্ষার ফলাফলের প্রমাণ দেখাতে হবে। এগুলো প্রিন্ট বা ডিজিটাল ফরম্যাটে হতে পারে। থাইল্যান্ডের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বা স্থল সীমান্ত চেকপয়েন্টে (22টি প্রদেশে) আগমনের সময় অবিরাম চেক করা হবে। টিকা না দেওয়া/পুরোপুরি টিকা দেওয়া হয়নি এমন ভ্রমণকারীরা যাদের অবিরাম চেক করা হয়েছে এবং যারা আগমনের আগে নেতিবাচক পরীক্ষার প্রমাণ দেখাতে অক্ষম তাদের প্রবেশের সময় একটি পেশাদার ATK পরীক্ষা করতে হবে।

৭৬টি প্রদেশকে সবুজ অঞ্চলের অনুমোদন

ইতিমধ্যে, সিসিএসএ ব্যাংকক এবং ৭৬টি প্রদেশকে নজরদারি বা সবুজ অঞ্চল হিসাবে মনোনীত করার অনুমোদন দিয়েছে, এইভাবে দেশব্যাপী নতুন স্বাভাবিক ব্যবসা এবং ক্রিয়াকলাপ পুনরায় শুরু করার অনুমতি দিয়েছে। এবং সার্বজনীন প্রতিরোধের অধীনে সুরক্ষা এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থা বজায় রাখার সময়, রয়্যাল থাই সরকার একটি নতুন নির্দেশিকা ঘোষণা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে কারণ দেশ মহামারী পরবর্তীতে পা রাখছে।

পর্যটকদের প্রতি অত্য্যন্ত দায়িত্বশীল থাইল্যান্ড-অনিল পাঞ্জাবি (টাফি)

থাইল্যান্ড পাশ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন ট্রাভেল এজেন্টস ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া বা টাফি’র চেয়ারম্যান(পূর্বাঞ্চল) অনিল পাঞ্জাবি।তিনি বলেন-এর ফলে আরও বেশি মানুষ থাইল্যান্ড ভিজিট করতে পারবেন। আমরাও থাইল্যান্ডে বেশি মানুষ পাঠাতে পারব।থাইল্যান্ড ভ্রমণ আরও সহজ হবে। মানুষ থাইল্যান্ড যাওয়ার ব্যাপারে আগ্রহী হবে। থাইল্যান্ড বরাবরই পর্যটকদের প্রতি অত্যন্ত দায়িত্বশীল। কলকাতা থেকে কোভিডের আগে বহু মানুষ থাইল্যান্ডে গিয়েছে। যাদের একটা বড় অংশ ছিল ব্যবসায়ী। আশা করছি, আগামী ১ জুলাই ২০২২ এর পর থেকে কলকাতার মানুষ ফের থাইল্যান্ডমুখী হবে।

Published on: জুন ১৭, ২০২২ @ ২৩:৪৫


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •