নিউজ পোর্টাল কি সরকারি স্বীকৃতি পেতেপারে- কি বললেন কলকাতা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক কিংশুক প্রামাণিক

দেশ রাজ্য
শেয়ার করুন

  • এই সমস্ত সংবাদ মাধ্যমের সরকারি স্বীকৃতি না থাকার জন্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে সংবাদ সংগ্রহের কাজে অসুবিধারও মুখোমুখি হতে হচ্ছে সেখানকার সাংবাদিকদের।
  • “আপনাদের মতো আমিও এই দাবি তুলছি যে এটা হওয়া দরকার।” বলেন কলকাতা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক।

Published on: ফেব্রু ১৬, ২০২০ @ ০০:১৯

এসপিটি নিউজ, কলকাতা, ১৫ ফেব্রুয়ারি:  নিউজ পোর্টাল এখনও সরকারি স্বীকৃতি পায় না।তারা কি কোনওদিনই তা পাবে না? তারা কি পেতে পারে না? শুক্রবার অল ইন্ডিয়া ব্রাদারহুড ফাউন্ডেশন ও সংবাদ প্রভাকর টাইমস-এর যৌথ উদ্যোগে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল।সেখানে কলকাতা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক কিংশুক প্রামাণিকের কাছে এই প্রশ্ন রেখেছিলেন সংবাদ প্রভাকর টাইমস-এর প্রধান সম্পাদক অনিরুদ্ধ পাল।এই প্রশ্নের জবাবে কলকাতা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক কিংশুক প্রামাণিক আশাব্যঞ্জক জবাব দিয়েছেন।

সরকারি স্বীকৃতি না মেলায় সমস্যা

ইদানীংকালে অনলাইন নিউজ পোর্টাল কিংবা চ্যানেলের প্রসার ঘটেছে। বহু মানুষ এই ধরনের সংবাদকে গ্রহণও করছে। কিন্তু এই সমস্ত সংবাদ মাধ্যমের সরকারি স্বীকৃতি না থাকার জন্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে সংবাদ সংগ্রহের কাজে অসুবিধারও মুখোমুখি হতে হচ্ছে সেখানকার সাংবাদিকদের। যাদের অনেকেই এক সময় নামি সংবাদপত্রে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করেছেন। কিন্তু আজ তারা যখন এই ধরনের সংবাদ মাধ্যম গড়ে সংবাদ পরিবেশন করছেন তখন তাদের সরকারি স্বীকৃতি না থাকার কারণে নানা ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

যা বললেন কিংশুক প্রামাণিক

  • এই নিয়ে খুব মূল্যবান বক্তব্য রেখেছেন কলকাতা প্রেস ক্লাবের সম্পাদক কিংশুক প্রামাণিক। তিনি বলেন, “আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি সোশ্যাল মিডিয়া নিউজ পোর্টালগুলির যেমন সরকারি স্বীকৃতি থাকা উচিত ঠিক তেমনই সেখানে যেসব সাংবাদিকরা কাজ করছে তাদেরও স্বীকৃতি থাকা উচিত। আপনাদের মতো আমিও এই দাবি তুলছি যে এটা হওয়া দরকার। সোশ্যাল মিডিয়ার সাংবাদিকদের একটা পরিচয়পত্রের প্রয়োজন আছে। কারণ, এখন আমাদের কাজ করতে গেলে পরিচয়পত্রের খুব প্রয়োজন হয়। আমি যেটা জানি যে এই বিষয়টা বর্তমানে আলোচনার স্তরে আছে।”
  • “একটা সময় ছিল যখন প্রিন্ট মিডিয়া ছিল এরপর যখন ইলেকট্রনিক মিডিয়া এল তখনও এই সমস্যাটা ছিল। সেই সময়ও কিন্তু অ্যাক্রিডিটেশন কার্ড দেওয়া হয়নি। এগুলি সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হয়েছে। অতএব সোশ্যাল মিডিয়ার সাংবাদিকরা ভবিষ্যতে স্বীকৃতি পাবে আমি তো তাই চাই।”

Published on: ফেব্রু ১৬, ২০২০ @ ০০:১৯

 


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

82 + = 84