ইসকন মায়াপুরে ১৪ই সেপ্টেম্বর মহাসমারোহে পালিত হবে রাধাষ্টমী মহোৎসব

Main দেশ ধর্ম ভ্রমণ রাজ্য
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Published on: সেপ্টে ১৩, ২০২১ @ ১১:৪৯

এসপিটি নিউজ, মায়াপুর,  ১৩ সেপ্টেম্বরঃ জন্মাষ্টমী মহোৎসব যেতে না যেতেই এবার রাধাষ্টমী মহোৎসবে মেতে উঠছে ইসকন মায়াপুর। ইসকনের প্রধান কেন্দ্র শ্রীধাম মায়াপুর সহ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তেই রাধাষ্টমী মহোৎসব মহাসমারোহে যথাযথ ধর্মীয় মর্যাদা ও রীতি মেনে পালিত হবে। আগামী ১৪ই সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার শ্রীমতি রাধারানীর আবির্ভাব মহোৎসব (রাধাষ্টমী) অনুষ্ঠিত হবে। এদিন গোটা মন্দির ফুল ও আলোকমালায় সাজিয়ে তোলা হবে। শুরু হয়ে গিয়েছে প্রস্তুতি।

ভারতজুড়ে রাধাষ্টমী ঘিরে বাড়ছে উৎসাহ

এই রাধাষ্টমী মহোৎসব ঘিরে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ শ্রীরাধার নাম সংকীর্তনে মেতে ওঠেন। শ্রীরাধার প্রেম-ভক্তিতে বিভোর হয়ে পড়েন। রাধা এবং কৃষ্ণ এক ও অভিন্ন। দুই-এ এক, একে এক- দুইজনে সমান। যেমন দুধ এবং তার ধবলত্ত্ব, অগ্নি এবং তার দাহিকা শক্তি, শক্তি এবং শক্তিমান অভেদ করা যায় না তেমন রাধা-কৃষ্ণ এক আত্মা, দুই তনু ধারী। ভগবান যুগে যুগে ধরাধামে অবতীর্ণ হন লীলা বিলাসের জন্য। এসব কথাই জানালেন ইসকন মায়াপুরের জনসংযোগ আধিকারিক রসিক গৌরাঙ্গ দাস।

শ্রীরাধার জন্ম বৃত্তান্ত

তিনি আরও জানান, ত্রেতা যুগে যেমন ভগবান শ্রীরামচন্দ্র লীলাসঙ্গিনী রূপে সীতাদেবীকে নিয়ে আবির্ভূত হয়েছিলেন।তেমনি দ্বাপরে পরমেশ্বর শ্রীকৃষ্ণ শ্রীমতি রাধারানীকে নিয়ে অবতীর্ণ হুয়েছিলেন। ত্রিতাপদগ্ধ দুঃখ জ্বালায় জর্জরিত জীবের নিজ স্বরূপ ভ্রষ্ট জীবসমূহকে পরম অমৃতময় পথের সন্ধান দিতে শ্রীমতি রাধারানী ভাদ্রমাসের শুক্লাষ্টমী তিথিতে সোমবার দুপুরে রাভেল নামক গ্রামে বৃষভানু রাজার ঘরে কীর্তিদা দেবীর গর্ভে জন্মগ্রহণ করেন।

শ্রীকৃষ্ণের প্রতি শ্রীরাধারানীর প্রেম

শ্রীকৃষ্ণের প্রতি শ্রীরাধারানীর প্রেম সম্পর্কে বলতে গিয়ে ইসকনের জনসংযোগ আধিকারিক জানান-“শ্রীকৃষ্ণের প্রতি রাধারানীর যে অহৈতুকী ভালবাসা তাঁর প্রতি যে আকর্ষণ সেটি ছিল এক বিশুদ্ধ প্রেম। সেই বিশুদ্ধ প্রেমের কণামাত্র মানবকূল গ্রহণ করতে পারলে ত্রিলোক ধন্য হয়ে যাবে। রাধাষ্টমীর পুণ্য আবির্ভাব তিথিতে তাঁর প্রার্থণা-কৃপাপূর্বক জীবজগতের পরমকল্যান সাধন করুন।”

Published on: সেপ্টে ১৩, ২০২১ @ ১১:৪৯


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •