আসানসোলের সভায় বিজেপিকে মমতার কটাক্ষ-মোহব্বত দিল সে হোতা হ্যায়, বাতো সে নেহি

রাজ্য
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Published on: নভে ৩০, ২০১৮ @ ২২:৪১

এসপিটি নিউজ, আসানসোল, ৩০ নভেম্বরঃ তিনি কাজ করেন। কাজের পিছনে ছোটেন। দলের কর্মী থেকে শুরু করে নেতা-মন্ত্রীদের কাযে মন দিতে বলেন। কেউ কাজ না করলে তাকে ছেড়ে কথা বলতেও ছাড়েন না। সে তাঁর দলের লোকই হোন আর প্রশাসনের। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জেলা সফর চলছে। এক একটা দিন তিন এক এক জেলায় প্রশাসনিক সভা থেকে শুরু করে জনমুখী পরিষেবা দিয়ে চলেছেন। তবে প্রতিটি জায়গাতেই তাঁর আক্রমণের লক্ষ্য হয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। পশ্চিম বর্ধমানের প্রশাসনিক সভায় তিন নাম না করে বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগেন।

এর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হিন্দুত্ব নিয়ে বিজেপি তাঁর বিরুদ্ধে আক্রমন শানিয়েছিল। এদিনের সভায় তিনি তারই জবাব দিলেন সুকৌশলে। একই সঙ্গে নাম না করে বিজেপির দিকে কয়েকটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন। তিনি বলেন-” আমি হিন্দু। হিন্দু আমার আমার ধর্ম। হিন্দি ভাষা আমাদের জাতীয় ভাষা।আমি দুর্গাপুজো করি। কালীপুজো করি। আমার মুসলিম ভাইরা কালীপুজোয় আসবে না? দুর্গাপুজোয় আসবে না? এখানে মুসলিমদের থাকতে দেব না?মনে রাখবেন, বাংলায় ৩০ শতাংশ সংখ্যালঘু আছে।”

মমতা এরপর বলতে থাকেন-“তারা আমাদের দুর্গাপুজোয় আসে।আমরা বড়দিন পালন করব না? আমরা কেক খাব না? আমরা গুরু নানকের জন্মদিন পালন করব না? গুরুদোয়ারায় গিয়ে হালুয়া খাব না?”

“এক একজনের এক এক ধর্ম। আমরা ছটপুজোর জন্য গঙ্গা মায়ের পুজো করি। সেরকম রমজানের জন্য রোজা রাখি। এর মধ্যে পার্থক্য কোথায়? আমরা যেমন গঙ্গা পুজো করি সেরকম সূর্য দেবতার পুজোও করি।” বলেন মমতা।

পুজোর প্রসাদ পেতে তিনি কতটা আগ্রহী সেটাও বুঝিয়ে দেন এদিনের ভাষনে। বলেন-“ছটপুজোর ঠেকুয়া না এলে আমার ভাল লাগে না। ঠিক তেমন গুরুনানকের জন্মদিনে হালুয়া না এলেও ভাল নাগে না। দুর্গাপুজোয় ভোগ না খেলে কি ভাল লাগে? ”

পাশের ধানবাদের সঙ্গে তুলনা টেনে বলেন- “ঝাড়খণ্ডের বিজেপি সরকার ধানবাদ জেলায় কি কি সুবিধা দিয়েছে জেনেছেন? দেখুন সেখানে অনেক কিছুই নেই। আপনাদের এখানে নতুন হাসপাতাল থেকে শুরু করে, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে, পলিটেকনিক কলেজ, আইটিআই থেকে শুরু করে কি হয়নি নতুন জেলা হওয়ার পর। এরপর এখানে জেলা আদলত হতে ছলেছে। আর দেখুন ধানবাদে! সেখানে অনেক কিছুই নেই। মাথায় ফেট্টি বেঁধে শুধু গুন্ডামি করতে কিছু লোক পাঠিয়ে দিচ্ছে ওরা। এসব করে কিচ্ছু হবে না।”

এরপর মমতা হিন্দি কবিতার লাইন উদ্ধৃত করে নাম না করে বিজেপিকে কটাক্ষ করেন-

রোশনি চাঁদ সে হোতা হ্যায়

সিতারো সে নেহি

মোহব্বত দিল সে হোতা হ্যায়

বাতো সে নেহি।

Published on: নভে ৩০, ২০১৮ @ ২২:৪১   


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *