আমি গর্ব করে বলতে পারি, ‘হ্যাঁ আমরা পারব!’ বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Main অর্থ ও বাণিজ্য কোভিড-১৯ প্রবাস বাংলাদেশ বিদেশ রাজ্য
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Published on: এপ্রি ২০, ২০২২ @ ২১:৪১
Reporter: Aniruddha Pal

এসপিটি নিউজ, কলকাতা, ২০ এপ্রিল:  এক অভূতপূর্ব বাণিজ্য সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখিয়ে দিলেন তিনি যা চান তা করে দেখান। হ্যাঁ, আজ বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে শুরু হওয়া বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন বা বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট-এর রীতিমতো শিল্পপতিদের চাঁদের হাট বসে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন-আমি গর্ব করে বলতে পারি, ‘হ্যাঁ আমরা পারব!’ মহামারীর পরে আমরাই প্রথম রাজ্য যারা এত বড় আকারের ইভেন্ট পরিচালনা করেছি।

মুখ্যমন্ত্রী সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন- “বেঙ্গল গ্লোবাল বিজনেস সামিট 2022-এর 6 তম সংস্করণ আজ বিশ্ব বাংলা কনভেনশন সেন্টারে শুরু হয়েছে। 42টি দেশের অপ্রতিরোধ্য অংশগ্রহণ দেখেছি যার মধ্যে 14টি অংশীদার দেশ আছে। গৌতম আদানি, টি ভি নরেন্দ্রন, সজ্জন জিন্দাল, নিরঞ্জন হিরানন্দানি, রিশাদ প্রেমজি, সঞ্জীব পুরী, সঞ্জীব গোয়েঙ্কা, সঞ্জীব মেহতার মতো ভারতীয় শিল্পপতিরাও সেখানে ছিলেন। তারা সকলেই কেবল রাজ্য নেতৃত্বের প্রতি আস্থা পোষণ করেননি, রাজ্যে বিপুল বিনিয়োগের ঘোষণাও করেছেন।’’

উদ্বোধনী ভাষণ দেন মাননীয় রাজ্যপাল। উদ্বোধনী ভাষণে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর বলেন- বাংলা তার সমৃদ্ধ ঐতিহ্য, স্থাপত্য, আর্ট গ্যালারী এবং সাংস্কৃতিক উৎসবের জন্য পরিচিত। এছাড়াও বাংলাদেশ ও ভুটানের মাননীয় বাণিজ্যমন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। কূটনীতিক, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ী নেতা, চিন্তাশীল নেতা, নীতিনির্ধারক এবং ব্যবসায়িকদের বিপুল অংশগ্রহণ।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন তাঁর ভাষণে বলেন- “রাজ্যের প্রধান স্তম্ভগুলি হল মহিলাদের ক্ষমতায়ন, সংখ্যালঘুদের উন্নীতকরণ, রাজ্যের নাগরিকদের জন্য সাশ্রয়ী মূল্যের স্বাস্থ্যসেবা এবং শিক্ষা।’’ ‘’MSME, গ্রামীণ আবাসন, গ্রামীণ রাস্তা, সংখ্যালঘু স্কলারশিপ, ই-টেন্ডারিং এবং আরও অনেক কিছুতে বাংলা এক নম্বর। আমাদের শিল্প নীতি মেনে সামাজিক নিরাপত্তা আছে।’’

মুখ্যমন্ত্রী বলেন-২ বছর পর আমরা বিজিবিএসের আয়োজন করছি। আমি গর্ব করে বলতে পারি, ‘হ্যাঁ আমরা পারব!’ মহামারীর পরে আমরাই প্রথম রাজ্য যারা এত বড় আকারের ইভেন্ট পরিচালনা করছে।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন- শেষ পাঁচটি বিশ্ব বঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলনে ১২ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগের পেশ হওয়া প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। সেগুলি সবই প্রায় কার্যকর হওয়ার পথে আছে। পাশাপাশি তিনি এদিন রাজ্যের শিল্প নীতির বিষয়ে শিল্পপতিদের আশ্বস্ত করে বলেন, আমাদের আটটি স্তম্ভ আছে। সেগুলি হল-

  • প্রথম, আন্তর্জাতিক মানের পরিকাঠামো।
  • দ্বিতীয় আমাদের শিক্ষার অধিকার। যেখানে আছে কন্যাশ্রী। বিনামূল্যে শিক্ষা।
  • তৃতীয় স্তম্ভ হল সামাজিক নিরাপত্তা।আমাদের লোকসভাতেই নির্বাচিত মহিলা জনপ্রতিনিধি ৩৮ শতাংশ। মহিলাদের ক্ষমতায়নে আমরা সরকার থেকে মহিলাদের ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা প্রতি মাসে দিচ্ছি। যা লক্ষ্মী ভান্ডার প্রকল্প হিসেবে পরিচিত। ইতি মধ্যে দেড় কোটি মহিলা টাকা গ্রহণ করেছেন। ২৭ লক্ষ ইতিমধ্যেই গ্রহণ করেছে। হেলথ কার্ড সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ৫ লক্ষ স্বাস্থ সাথী কার্ড পরিবারের জন্য দেওয়া হয়েছে। ২.৫ কোটি মানুষ এই সুবিধা পেয়েছে।
  • চতুর্থ হল স্কিল ডেভেলপমেন্ট।
  • পঞ্চম হল পরিকাঠামো তৈরি। শেষ বার ১৮ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে।
  • ষষ্ঠ হল ব্যবসার উপর আলোকপাত।
  • সপ্তম হল সুশাসন ও ব্যাপক আকারে ডিজিটালাইজেশন।আমাদের সর্বশেষ অষ্টম স্তম্ভ হল ধর্মঘট নয়, বনধ নয়, কোনও ক্ষতি নয়। শুধুই কাজ আর কাজ।

 

 

Published on: এপ্রি ২০, ২০২২ @ ২১:৪১

 


শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •