আজাদি কা অমৃত মহোৎসব: বায়োটেক কিষান হাবের কর্মসূচিতে উপকৃত হবেন রাজ্যের ৩ হাজারেরও বেশি কৃষক

Main দেশ প্রাণী ও মৎস্য বিজ্ঞান রাজ্য
শেয়ার করুন

Published on: এপ্রি ২৪, ২০২১ @ ১৮:০৯

Reporter:  Aniruddha Pal

এসপিটি নিউজ, কলকাতা, ২৪ এপ্রিলঃ গতকালই শেষ হয়েছে তিনদিনের এক বিজ্ঞান ভিত্তিক মৎস্য প্রশিক্ষণ শিবির। ভার্চুয়াল এই প্রশিক্ষণ শিবিরে অংশ নিয়েছিলেন পশ্চিমমবঙ্গের সম্ভাব্যময় কয়েকটি জেলার কৃষকরা। ভারতের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসবের অংশ হিসেভে দেশজুড়ে নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। তেমনই ভারত সরকারের জৈব-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেশের প্রান্তিক ও পিছিয়ে পড়া কৃষকদের আত্মনির্ভর করে তোলার প্রয়াস নেওয়া হয়েছে। বাদ নেই আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গও। এখানে বায়োটেক কিষান হাব ইউনিট তাদের কর্মসূচি নিয়েছে, যেখানে রাজ্যের পাঁচটি জেলার তিন হাজারেরও বেশি কৃষক উপকৃত হবেন।

ভারত সরকারের জৈব-প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের প্রয়াস

ভারত সরকারের জৈব-প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে ভারতবর্ষের প্রান্তিক ও পিছিয়ে পরা কৃষক বন্ধুদের আত্মনির্ভর গড়ে তোলার উদ্দেশে আয়োজিত ‘আজাদি কা অমৃত মহৎসব’-এর দামামা সারা দেশে বেজে উঠেছে। এর অধীনে আগামী ছয় মাসে সারা দেশজুড়ে ৭৫টি সম্ভাব্যময় জেলার প্রায় ৭৫,০০০ জন কৃষক উপকৃত হবেন। ভারতের অন্যান জেলাগুলির সাথে সাথে আমাদের জেলার পশ্চিমবঙ্গ প্রাণী ও মৎস বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্ত বায়োটেক কিষান হাবের পক্ষ থেকে ‘আজাদি কা অমৃত মহৎসব’-এর উপলক্ষে প্রায় ৯ ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের তিন হাজারেরও বেশি কৃষকরা পেতে চলেছেন এই সুযোগ

এই কর্মসূচীগুলি প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ প্রাণী ও মৎস্য বিজ্ঞান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্ত বায়োটেক কিষান হাবের মুখ্য পরিদর্শক ডঃ কেশব চন্দ্র ধারা বলেন- “ভারতের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ভারত সরকারের জৈব-প্রযুক্তি মন্ত্রনালয়ের পক্ষ থেকে ‘আজাদি কা অমৃত মহৎসব’-এর আয়োজন করা হয়েছে। সেই উপলক্ষে আমাদের পশ্চিমবঙ্গের বায়োটেক কিষান হাবের ইউনিট এর পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি সম্ভাব্যময় জেলার কৃষক বন্ধুদের আত্মনির্ভর ও তাদের চাষের মানোন্নয়ন করার উদ্দেশে ৯ ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। যার মাধ্যমে আমরা প্রায় ৩,০৯০ জন কৃষক বন্ধুদের উপকৃত করতে পারব এই আশা রাখছি। এই রকম মহামারী জনিত পরিস্থিতির মধ্যেও আমদের পশ্চিমবঙ্গের বায়োটেক কিষান হাবের সমস্ত কর্মীগণ সবসময় কৃষকদের পাশে থেকে তাদের সম্যসা দূরীকরণের পাশাপাশি তাদের সঠিক প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদের জীবনযাত্রার মানোন্নয়ন করার অক্লান্ত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।”

এই কর্মসূচীগুলির ফলে এই রকম মহামারী জনিত পরিস্থিতিতে একদিকে যেমন গ্রামের প্রত্যন্ত কৃষকরা আধুনিক প্রযুক্তির সাথে অবগত হতে পারবেন তেমনই এই কর্মসূচিগুলি তাদের পশু পালনের মানোন্নয়নের পাশাপাশি যাবতীয় সমস্যা দূরীকরণে সাহায্য করবে।

আজাদি কা অমৃত কা মহোৎসব-এর উদ্দেশ্য

২০২২ সালের ১৫ আগস্টের আগে ভারত সরকার স্বাধীনতার ৭৫ বর্ষপূর্তির পূর্বে আজাদি কা অমৃত কা মহোৎসব উদযাপন শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই উৎসবটির লক্ষ্য ২০৪৭ সালের দিকে তাকিয়ে ভারতের জন্য একটি দৃষ্টি তৈরি করা। এই মহোৎসবের উদ্দেশ্যই হল প্রযুক্তি ও বৈজ্ঞানিক কৃতিত্বের পাশাপাশি এই উৎসবে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা। এ ছাড়া কিছু অজানা জায়গার অবদান এবং কিছু মুক্তিযোদ্ধার অবদান তুলে ধরা।এ উপলক্ষে সরকার বিভিন্ন মেগা প্রকল্প জাতির উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করবে। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়কে বিভিন্ন মূল প্রকল্পগুলি সনাক্ত করতে বলা হয়েছে এবং সমস্ত মন্ত্রণালয়কে এই মহোৎসবের মাধ্যমে স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষ উদযাপন শুরু করতে বলা হয়েছে।

Published on: এপ্রি ২৪, ২০২১ @ ১৮:০৯


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

63 − = 61