মন্ত্রী জাকির হোসেনের উপর হামলার ঘটনাকে গভীর ষড়যন্ত্র বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Main রাজ্য
শেয়ার করুন

Published on: ফেব্রু ১৮, ২০২১ @ ১৬:৫৮

এসপিটি নিউজ:    বোমার হামলায় আহত মন্ত্রী জাকির হোসেনকে ঘিরে রাজ্য-রাজনীতি সরগরম হয়ে উঠেছে।রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস যখন এই ঘটনার দায় কেন্দ্রের উপর চাপাতে ব্যস্ত তখন বিজেপি পাল্টা তোপ দেগে বলেছে- নিজের মন্ত্রীকেই সুরক্ষা দিতে পারে না এখানকার সরকার। প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরি এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়েছেন। বলেছেন এনআইএ -কে দিয়ে তদন্ত করানো হোক।

আজ কলকাতার হাসপাতালে মন্ত্রী জাকির হোসেনকে দেখতে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল মুর্শিদাবাদ জেলার নিমতিতা স্টেশন থেকে ট্রেন ধরে কলকাতার আসার জন্য বের হয়েছিলেন মন্ত্রী জাকির হসেন। তিনি যখন স্টেশনে প্রবেশ করেন তখন বোমা বিস্ফোরণ হয়। বোমার হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হন। আহত হন মন্ত্রী নিজেও। এরপর প্রথমে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে রাতেই কলকাতায় নিয়ে আসা হয়।

হাসপাতালে এসে জাকির হোসেনকে দেখে বেরিয়ে যাওয়ার সময় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিকদের বলেন- তদন্ত চলছে। এটা এক গভীর ষড়যন্ত্র। আমরা আশা করি সত্য প্রকাশিত হবে। তার অবস্থা খুব সঙ্কটজনক। তার নাড়ির হার হ্রাস পেয়ে ৫০ এ নেমে গেছে। গুরুতর আহতদের আমরা প্রত্যেকে পাঁচ লক্ষ টাকা এবং ছোটখাটো আঘাতজনিত ব্যক্তিদের প্রত্যেককে এক লাখ রুপি দেব। মামলাটি সিআইডি, এসটিএফ ও সিআইএফের হাতে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এরই মধ্যে এই হামলার দায় যেমন কেন্দ্রের উপর চাপিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস তেমনই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বিরুদ্ধেও অভিযোগের আঙুল তোলা হয়েছে। মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল কংগ্রে এই ঘটনার পিছনে অধীর চৌধুরির হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন। যদিও অধীর রঞ্জন চৌধুরী এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন- পশ্চিমবঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা নেই। এই রাজ্যে কোনও ব্যক্তিই নিরাপদ নয়। এনআইএ’কে দিয়ে এই ঘটনার তদন্ত করানো উচিত।

Published on: ফেব্রু ১৮, ২০২১ @ ১৬:৫৮


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

− 2 = 2