ভারতে চিতাবাঘের সংখ্যা বেড়ে 12,852টি , চারবছরে রেকর্ড বৃদ্ধি

দেশ বন্যপ্রাণ বিদেশ
শেয়ার করুন

Published on: ডিসে ২২, ২০২০ @ ২০:৩০
Reporter: Aniruddha Pal

এসপিটি নিউজ:  বাঘের পর এবার চিতাবাঘের জনসংখ্যা বৃদ্ধিতেও চমকে দিয়েছে ভারত। মাত্র চার বছরে সংখ্যাটা রেকর্ড বৃদ্ধি পেয়েছে।60 শতাংশ বেড়ে হয়েছে 12,852। বাঘ সংরক্ষণের পাশাপাশি চিতাবাঘ সংরক্ষণেও ভারতে যে ভালো কাজ হচ্ছে এই সংখ্যা তারই প্রমাণ বলে মনে করছে বন ও পরিবেশ মন্ত্রালয়। দফতরের মন্ত্রী প্রকাশ জাভদেকর আজ ‘স্ট্যাটাস অফ লেপার্ড ইন ইন্ডিয়া ২০১৮’ বা ‘Status of Leopard in India 2018’  রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই খবরে উচ্ছ্বসিত হয়ে প্রানী সংরক্ষণে কাজ করা সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

ভারতে বর্তমানে চিতাবাঘের জনসংখ্যা

স্ট্যাটাস রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতে বর্তমানে চিতাবাঘের জনসংখ্যা রেকর্ড পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। 2014 সালের চেয়ে তা 60 শতাংশ বেড়েছে। চার বছর আগে সারা দেশে 7,910 টি চিতাবাঘ ছিল। এখন তা বেড়ে হয়েছে 12,852টি। রাজ্যগুলির মধ্যে মধ্যপ্রদেশে 3,421, কর্ণাটকে 1783  এবং মহারাষ্ট্র 1690টি চিতাবাঘের সংখ্যা রেকর্ড করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জাভদেকর এই তথ্য ট্যুইট করে লিখেছেন- গত কয়েক বছরে বাঘ, সিংহ এবং চিতাবাঘের জনসংখ্যার বৃদ্ধি বন্যজীবন এবং জীববৈচিত্র্যের নবীনতার সাক্ষ্য।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি’র ট্যুইট

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ট্যুইট করেছেন- “বড় খবর! সিংহ, বাঘের পর এবার চিতাবাঘের সংখ্যাও বেড়েছে।যারা প্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে কাজ করছেন তাদের সবাইকে অভিনন্দন। আমাদের এই প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে এবং আমাদের পশুদের নিরাপদ আবাসে বাস করতে দেওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত করতে হবে।

চিতাবাঘের অবস্থান

রিপোর্টের প্রতিবেদনের ভূমিকায় উল্লেখ করা হয়েছে চিতাবাঘের অবস্থান সম্পর্কে। উল্লেখ করা হয়েছে যে চিতাবাঘের ঐতিহাসিক পরিসীমা প্রায় 35,000,000 বর্গ কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত সাব সাহারান এবং উত্তর আফ্রিকা, মধ্য প্রাচ্য এবং এশিয়া মাইনর, দক্ষিণ এবং দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া, এবং প্রসারিত রাশিয়ান সুদূর প্রাচ্যের আমুর উপত্যকা। দ্বীপ অঞ্চলগুলির মধ্যে শ্রীলঙ্কা, জাভা, জাঞ্জিবার এবং অন্তর্ভুক্ত ছিল কঙ্গিয়ান।

যে কারণে চিতার জনসংখ্যা হ্রাস পাচ্ছে

হিমালয় ঘেরা এলাকাগুলিতে দেখা যায় চিতাবাঘ। সেখানে তুষার চিতার প্রাধান্য আছে। যদিও শিকার এবং অন্যান্য কারণে তাদের সংখ্যা গত কয়েক শতাব্দীতে উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পেয়েছে।সমস্ত উপ-প্রজাতির মধ্যে, ভারতীয় চিতাবাঘ সারা বিশ্বে বৃহত্তম জনসংখ্যার আকার হয়ে উঠেছে এবং এর ব্যাপ্তি ধরে রেখেছে ভারতের বাইরে। তবে ভারতীয়  উপমহাদেশে শিকার, বাসস্থান হ্রাস, প্রাকৃতিক শিকার এবং সংঘাতের জন্য চিতার জনগোষ্ঠী বড় হুমকির মুখোমুখি।এছাড়াও মানুষের সাথে সরাসরি সংঘাতের কারণেও ঘটছে এদের সংখ্যা হ্রাস।

বাঘ সংরক্ষণে নজর

বাঘ সংরক্ষণে কয়েকটি দিকের উপর জোর দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে প্রথম চক্রে রাখা হয়েছে বাঘের জন্য বনভূমির ল্যান্ডস্কেপকে। যেখানে শিকারিদের অবস্থা, আবাস এবং অবশ্যই মানুষের সঙ্গে বিবাদকে নজর করা। দ্বিতীয় চক্রে ব্যাঘ্রপ্রকল্পের জন্য ‘ছাতা’ ভূমিকাকে জীব্বৈচিত্র্য সংরক্ষণে জোর দেওয়া হয়েছে। তৃতীয় চক্রে চিতাবাঘের ন্যূনতম জনসংখ্যার উপর জোর দেওয়া হয়েছে।2014 সালে যেখানে ভারতে চিতাবাঘের সংখ্যা ছিল 7,910 । যা দেশের 18 টি বাঘ বহনকারী রাজ্যকে চিহ্নিত করে।চতুর্থ চক্র ছিল সেরা উপলব্ধ ব্যবহার করে গৃহীত বিজ্ঞান, প্রযুক্তি এবং বিশ্লেষণমূলক সরঞ্জামকে কাজে লাগানো।

Published on: ডিসে ২২, ২০২০ @ ২০:৩০


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

90 − = 89