বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে চলা জাহিদ আহসান রাসেলকে ঘিরে গাজীপুর -২ আসনে বাড়ছে জনতার উৎসাহ

Main বাংলাদেশ বিদেশ
শেয়ার করুন

সংবাদদাতা-ইবতাসুম রহমান

Published on: ডিসে ২৪, ২০১৮ @ ১৬:৫০

এসপিটি নিউজ, ঢাকা, ২৪ ডিসেম্বরঃ বাংলাদেশে যতজন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে চলেছেন তার মধ্যে অবশ্যই প্রথম সারিতেই থাকবেন জাহিদ আহসান রাসেল। একজন কর্মঠ, পরিশ্রমী শিক্ষানুরাগী, শ্রমিক বন্ধু ও নির্লোভ রাজনীতিবিদ, উন্নয়নের রূপকার তিনি। তাঁকে ঘিরে গাজীপুর-২ আসনে মানুষের মধ্যে উৎসাহ আজ চরমে পৌঁছেছে।

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সদর, গাছা, বাসন, টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা নিয়ে গঠিত গাজীপুর-২ আসন। এই আসনে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ছেলে বর্তমান এমপি, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি জাহিদ আহসান রাসেলের রয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। নির্বাচন সামনে রেখে দলীয় কর্মসূচি ছাড়াও রাষ্ট্রীয় কর্মসূচি, সরকারি উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সহ নানা ইস্যুতেই তিনি এবং তার কর্মীরা যাচ্ছেন সাধারণ মানুষের কাছাকাছি। আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়নের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেছেন নানাভাবে।

সহজ সরল মানুষ হিসেবে এলাকায় জাহিদ আহসানের রয়েছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা। তিনি ১৯৭৮ সালের ১ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। পৈতৃক বাড়ি গাজীপুর জেলার গাজীপুর সদর উপজেলার হায়দরাবাদ গ্রামে। তিনি স্নাতক (ডিগ্রি) পাস করেছেন। শৈশবে খেলেধুলোর প্রতি বিশেষ ঝোঁক ছিল তাঁর। তিনি ফুটবল ও ব্যাডমিন্টন খেলতে পছন্দ করতেন। ২০০৮ ও ২০১৪ সালে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

উন্নয়ন ছাড়া তিনি কিছুই ভাবতে চান না। এ বিষয়ে তিনি বলেন- “বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।” তাঁর উন্নয়নের বহর দেখলে অবাক হয়ে যেতে হয়। তাহলে শুনুন তাঁর উন্নয়নের কথা। এসব কাজ করেছেন হাজিদ আহসান রাসেল।

গাজীপুর সদর হাসপাতাল ৫০ থেকে ৫০০ শয্যায় উন্নীত করেছেন তিনি। টঙ্গী সরকারি হাসপাতাল ৫০ থেকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করার পাশাপশি গাজীপুর সরকারি মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা, ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নার্সিং কলেজ নির্মাণ, টঙ্গীতে ২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার ঊড়াল সেতু নির্মাণ করেছেন তিনি। তাঁরই উদ্যোগে গাজীপুর রেলগেটে উড়াল সেতু প্রক্রিয়াধীন। বিশ্ব ইজেতমার মাঠ এবং ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নে বরাদ্দকৃত ১১০ কোটি টাকার কাজ চলমান। গাজীপুরে নতুন প্রশিক্ষন কেন্দ্র নির্মাণে ২৭ কোটি টাকার কাজ চলমান। এয়ারপোর্ট থেকে জয়দেবপুর পর্যন্ত বিআরটি প্রকল্পে বরাদ্দকৃত ২০৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭টি ফ্লাইওভার এবং আট লেনের রাস্তা নির্মাণের কাজ চলছে। ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে টঙ্গীতে নৌ-বন্দর নির্মাণ ও তুরাগ নদের দুই পাড় বাঁধাই এবং ওয়াকওয়ে নির্মাণ, গাছার শরিফপুরে ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির জন্য ৫২ কোটি টাকার নির্মাণ কাজ চলছে। কামারজুরিতে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ শয্যাবিশিষ্ট মা ও শিশু হাসপাতাল নির্মাণ করেছেন তিনি। গাজীপুরে নীলেরপাড়া ও পশ্চিম জয়দেবপুর ১০ শয্যাবিশিষ্ট আরও দুটি হাসপাতালের নির্মাণ কাজ প্রক্রিয়াধীন। গাজীপুরে পিটিআই-এর অভ্যন্তরে সাড়ে ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক অডিটরিয়াম নির্মাণ কাজ চলছে। কাজী আজিমউদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে আইটি বিষয়ে অনার্স কোর্স ও একটি বিষয়ে মাস্টার্স কোর্স এবং পৌনে দুই কোটি ব্যয়ে দুটি ভবন নির্মাণ, টঙ্গী সরকারি কলেজে নতুন আরও চারটি বিষোয়ে অনার্স কোর্স চালু এবং ১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ে অ্যাকাডেমিক ভবন নির্মাণ, টঙ্গী সরকারি কলেজে নতুন করে আরও চারটি বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু এবং ১ কোটি টাকা ব্যয়ে অ্যাকাডেমিক ভবন নির্মাণ, ৬৫ লাক টাকা ব্যয়ে গাজীপুর হাসপাতাল নতুন মসজিদ নির্মাণ, টঙ্গীতে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণ তারই অবদান।

এ ছাড়াও গাজীপুরের ২০টি স্কুলে কম্পিউটার ল্যাব প্রতিষ্ঠা, ৩ শতাধিক মসজিদ, স্কুল, মাদ্রাসা, মন্দিরে সোলার সিস্টেম স্থাপন, ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে রাস্তা ও ব্রিজ নির্মাণ, শতাধিক কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ভবন নির্মাণ, গাজীপুরের লক্ষ্মীপুরা, টঙ্গীর এরশাদনগর, গাছার কুনিয়া চান্দ্রা, কামারজুরি, এবং টঙ্গীর সুকিনগরে পাঁচটি স্কুল নির্মাণ তাঁরই অবদান।

তাহলেই বুঝুন, মহাজোটের আওয়ামী লীগের এই প্রার্থী জাহিদ আহসান রাসেল গাজীপুর-২ আসনে কেন অন্য সব প্রার্থীর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছেন। কেন তিনি তিনি এত জনপ্রিয়, কেন তাঁকে নিয়ে মানুষের এত উৎসাহ।

Published on: ডিসে ২৪, ২০১৮ @ ১৬:৫০


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

45 − 36 =