পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলনকে জোরদার করতে বড় ভুমিকা নিতে চলেছেন সাংসদ অর্জুন সিং

রাজ্য
শেয়ার করুন

“কলকাতা পুলিশের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে রানি রাসমণি রোডে আপনাদের সংগঠনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানানোর দরকার আছে।”

“আমাদের ১৮জন সাংসদকে নিয়ে এসে প্রত্যেকদিন আপনাদের ধর্না মঞ্চে আমরাও পাশে থাকব।”

Published on: আগ ১৮, ২০১৯ @ ২০:১৫ 

এসপিটি নিউজ, কল্যানী, ১৮ আগস্ট:  প্রথমে কলকাতায় পার্শ্বশিক্ষকদের উপর হামলা তারপর তার প্রতিবাদে কল্যানী থানার সামনে তাদের অনশন আন্দোলনের উপর পুলিশের বেপরোয়া লাঠিচার্জের ঘটনা এক বড় প্রশ্ন চিহ্ন তুলে দিয়েছে। তবে কি এ রাজ্যে শিক্ষকরা আর সুরক্ষিত নেই। তারা কি তাদের দাবি-দাওয়া জানিয়ে আন্দোলন করতে পারবে না? আন্দোলন করলেই তাদের লাঠি দিয়ে পিটিয়ে ভাগিয়ে দেওয়া হবে? রাজ্যের আজ ৮৪ হাজার পার্শ্বশিক্ষকদের ভিতর থেকে এই প্রশ্ন উঠেছে। গতকালের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে আজ সেই পার্শ্বশিক্ষকরা কল্যানী থানা ঘেরাও কর্মসূচি নিয়েছিলেন। যেখানে হাজির হয়ে তাদের পাশে থাকার অঙ্গীকার করেছেন বারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং।যিনি নিজেই এই আন্দোলনে এক বড় ভূমিকা নিতে চলেছেন।

যেভাবে পার্শ্বশিক্ষকদের উৎসাহিত করলেন সাংসদ অর্জুন সিং

রবিবার কল্যানী থানার সামনে পার্শ্বশিক্ষকদের থানা ঘেরাও কর্মসূচিতে হাজির হয়ে সাংসদ অর্জুন সিং বলেন- “শিক্ষকরা সমাজের সম্মানীয়। তারাই সমাজ গড়ে। তাদের হাতেই ভবিষ্যত গড়ে ওঠে। আজ এ রাজ্যে সেই শিক্ষকদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয়ে চলেছে। রাতের অন্ধকারে আলো বন্ধ করে তাদের লাঠি দিয়ে পেটানো হচ্ছে। এসব কি হচ্ছে? শিক্ষকরা কি অপরাধী? তাদের উপর লাঠিচার্জ হচ্ছে?” এরপরেই সাংসদ অর্জুন সিং উপস্থিত পার্শ্বশিক্ষকদের অভয় দিয়ে বলেন-” আপনারা আপনাদের আন্দোলন চালিয়ে যান। শুধু আমি নই, আপনাদের এই অনশন আন্দোলনে আমাদের বিজেপির যে ১৮জন সাংসদ আছেন কথা দিচ্ছে- তাদের সকলকেই আমি এখানে এক এক একদিন হাজির করব। বিজেপি আপনাদের আন্দোলনের পাশে আছে।”

প্রয়োজনে উচ্চ আদালতে যাওয়ার হুমকি

এরপর কল্যানী থানার যে সমস্ত পুলিশ শিক্ষক পিটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। অর্জুন বলেন- “সুপ্রিম কোর্টের অর্ডার আছে। তাই এদের বিরুদ্ধে কোনও সংঘাতে না গিয়ে যাদের ছবি এসেছে তাদের ছবি দেখিয়ে এফআইআর করব। আর কলকাতা পুলিশের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে রানি রাসমণি রোডে আপনাদের সংগঠনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানানোর দরকার আছে। যদি অনুমতি না দিয়ে থাকে তবে চিঠিটা আমাকে দেবেন। কাল পেপার রেডি করে মঙ্গলবারে হাইকোর্টে ফাইল করব আমরা। এই আন্দোলনে কলকাতা পুলিশকে অনুমতি দিতেই হবে। যদি হাইকোর্ট অনুমতি না দেয় সুপ্রিম কোর্ট আমরা যাব।আপনারা আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখুন।যেখানে আপনারা বলবেন আমরা যেতে রাজী আছি। আর আমাদের ১৮জন সাংসদকে নিয়ে এসে প্রত্যেকদিন আপনাদের ধর্না মঞ্চে আমরাও পাশে থাকব।”  ইতিমধ্যে এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কলকাতায় প্রতিবাদ মিছিল সংগঠিত করতে চলেছে পার্শ্বশিক্ষকদের ঐক্য মঞ্চ।

Published on: আগ ১৮, ২০১৯ @ ২০:১৫

 


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 + 3 =