নারদা কান্ডে চার নেতার জামিন খারিজ হাইকোর্টে, মদন,শোভনের পর এসএসকেএম-এ সুব্রত মুখোপাধ্যায়

Main কোভিড-১৯ রাজ্য
শেয়ার করুন

Published on: মে ১৮, ২০২১ @ ১৫:৪৫

এসপিটি নিউজ, কলকাতা, ১৮ মেঃ নারদা স্টিং অপারেশন কান্ডের মামলায় গতকাল রাতে নয়া মোড় নিল। বিশেষ আদালত ধৃত চার নেতার জামিন মঞ্জুর করলেও কলকাতা হাইকোর্টে জামিন খারিজ হয়ে যায়। ফলে চারজনকেই প্রেসিডেন্সি জেলে নিয়ে যাওয়া হয়। ইতি মধ্যে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে নিয়ে যাওয়া হয়। শ্বাস্কষ্ট জনিত অসুস্থতার কারণে তাদের সেখানে চিকিৎসা চলছে।আনা হয়েছে সুবন্রত মুখোপাধ্যাকেও।

এদিন প্রেসিদেন্সি জেলে বাবা ফিরহাদ হাকিমকে দেখতে আসেন তার মেয়ে সাবা হাকিম। সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি বলেন- তাঁর বাবা ববি হাকিম কলকাতা কর্পোরেশনের চেয়ারপার্সন। কোভিডের সময় গোটা দায়িত্ব তিনি সামলাচ্ছিলেন। বাবা মামাদের সঙ্গে নেই কিংবা তার পরিবারের সঙ্গে নেই এজন্য বাবার যতটা না কষ্ট হচ্ছে তার চেয়ে অনেক বেশি কষ্ট হচ্ছে বাবা এই সময় বাংলার মানুষের জন্য কলকাতার মানুষের জন্য কিছু করতে পারছেন না। এ কথা বলার সময় ফিরহাদ হাকিমও কেঁদে ফেলেন।

মদন মিত্র কিছুটা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন- মুকুল, শুভেন্দু ভাল আর আমরা খারাপ। তৃণমূল সাংসদ কল্যান বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন- মদন, শোভন এরা সদ্য কোভিড থেকে সেরে উঠেছে। ববি কলকাতার কোভিড পরিস্থিতি দেখছিলেন। আর সুব্রতদার বয়স ৭৬ বছর।

তবে প্রথম দিকে সুব্রত মুখোপাধ্যায় হাসপাতালে যেতে না চাইলেও পরে তাকেও এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয় হয়। সেই সময় তার কাছে জানতে হয়- সুব্রতদা আপনি কেমন আছেন? কিছুটা থেমে তিনি নিজের হাতটিকে মুখের কাছে নিয়ে গিয়ে বলেন- আমি ভাল নেই।

ইতি মধ্যে তৃণমূল সিবিআই-এর বিরুইদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। অন্যদিকে সিউবিআই সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে। সব মিলিয়ে নারদা মামলার তদন্ত বেশ কয়েক বছর পর ফের নড়েচড়ে উঠেছে।

Published on: মে ১৮, ২০২১ @ ১৫:৪৫


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

+ 35 = 39