খুব শীঘ্রই লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু হবে, নবান্নে জানালেন মুখ্যসচিব

রাজ্য রেল
শেয়ার করুন

Published on: নভে ২, ২০২০ @ ২০:২২

এসপিটি নিউজ:  কোভিড মহামারীর আবহে যাত্রী সুরক্ষাকে গুরুত্ব দিয়ে এবং সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনেই খুব শীঘ্রই রাজ্যে শহরতলীর লোকাল ট্রেন পরিষেবা শুরু হবে। আজ নবান্নে রাজ্য সরকার ও রেল কর্তাদের বৈঠকে এমন সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে রেল নিজেরা ট্রেন চালু করার বিষয়ে পরিকল্পনা করে তা নিয়ে আগামী বুধবার ফের নবান্নে দ্বিতীয় পর্যায়ের বৈঠকে বসছেন। সেই বৈঠকের পরেই সম্ভবত দিনক্ষণ ঘোষণা করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কি হল আজকের বৈঠকে

নবান্নে আজ প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে চলে রাজ্য সরকার ও রেল কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক। সেখানে সাধারণ পরিস্থিতিতে লোকাল ট্রেন কিভাবে চালানো যায় তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। বৈঠক শেষে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় সেই বিষয়ে আলোকপাত করে সাংবাদিকদের বলেন- সংক্রমণ যাতে কোনোভাবেই না বাড়ে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রেখে সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং সেই সঙ্গে যাত্রী সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই শহরতলীতে লোকাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ট্রেন ও যাত্রী সংখ্যা নিয়েও আলোচনা হয়েছে

মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন- আলোচনায় রেল কর্তাদের সঙ্গে স্থির হয়েছে কোভিড মহামারীর আগে যেরকম সংখ্যায় ট্রেন চলতো এখনই তেমনটা হবে না। তবে আগের চেয়ে ৫০ শতাংশ কম যাত্রী নিয়েই শুরু হবে লোকাল ট্রেন চলাচল। প্রাথমিক পর্যায়ে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ ট্রেন চালানো হবে পরে তা ২৫ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আগামী বুধবার পরবর্তী বৈঠক

স্থির হয়েছে কবে, কখন, কিভাবে এই ট্রেন চালানো হবে তা নিয়ে রেল কর্তারা বিস্তারিত পরিকল্পনা করছেন। সেই পরিকল্পনার রিপোর্ট নিয়ে তারা ফের আগামী বুধবার নবান্নে রাজ্য সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসছেন। আশা করা হচ্ছে, ওইদিনের বৈঠকের পরেই লোকাল ট্রেন চলাচলের দিনক্ষণ ঘোষণা করা হবে। এদিনের বৈঠকে পূর্ব রেলের অতিরিক্ত জেনারেল ম্যানেজার, পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব রেলের বিভাগীয় ম্যানেজার, রেলওয়ে সেফটি বোর্ডের সদস্য এবং রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়, স্বরাষ্ট্র সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী সহ পুলিশ ও প্রশাসনের পদস্থ আধিকারিকরা উপস্থিত ছিলেন। প্রাথমিক আলোচনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও অংশ নেন।

বৈদ্যবাটিতে যাত্রী বিক্ষোভ

হুগলির বৈদ্যবাটি স্টেশনে আজ স্পেশাল লোকাল ট্রেনে সাধারণ যাত্রীদের উঠতে না দেওয়ার প্রতিবাদে যাত্রীরা বিক্ষোভ দেখান। তারা এদিন রেললাইনে গাছের গুঁড়ি ফেলে রেখে রেল অবরোধ করে প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। তাদের দাবি- স্পেশাল লোকাল ট্রেনে সাধারণ যাত্রীদের উঠতে দিতে হবে। পরে অবশ্য রেল পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Published on: নভে ২, ২০২০ @ ২০:২২


শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

+ 71 = 76